অন্যান্য

স্ন্যাপড্রাগন চিপসেটের জীবনকাহিনী (পর্ব-১)

চিপসেট-

দ্য মোস্ট ইম্পর্ট্যান্ট পার্ট অফ এ ফোন, যা ছাড়া ফোন অচল। চিপসেট সম্পর্কে সঠিক ধারণা না থাকার জন্যে আমাদের মধ্যে অনেকেই ফোন কেনার পরে ধরা খেয়ে যাই ফোনের চিপসেট ভালো না হওয়ার জন্যে।চিপসেট দুনিয়ার অন্যতম সেরা একটি ব্র্যান্ড কোয়ালকম। কোয়ালকমের SoC (System on Chip) লাইনআপের নাম স্ন্যাপড্রাগন। কোয়ালকম এর চিপসেটের কিছু সিরিজ আছে, যেমন: ২০০, ৪০০, ৬০০, ৭০০ ও ৮০০; যা লো-রেঞ্জ, মিড-রেঞ্জ, আপার মিড-রেঞ্জ এবং ফ্লাগশিপ গ্রেড চিপসেট নির্দেশ করে।

আজ আপনাদের সাথে কোয়ালকমের ২০০ সিরিজের চিপসেট নিয়ে আলোচনা করবো যেখানে জানানোর চেষ্টা করবো কোন বাজেট এবং কি ধরনের ইউজারদের জন্যে এই চিপসেট। এবং পরবর্তী কোনো পোস্টে ৬০০, ৭০০ ও ৮০০ সিরিজ নিয়েও আলোচনা করবো।

স্ন্যাপড্রাগন ২০০ সিরিজ: ২০০ সিরিজের চিপসেট গুলো সাধারণত একদম লো-এন্ড ফোন এবং ফিচার ফোন গুলোতে ব্যবহার করা হয়ে থাকে


২০০ সিরিজের দুটি চিপসেট, স্ন্যাপড্রাগন ২০৫ ও ২১২ এর কিছু স্পেসিফিকেশন দেখে নিই।


স্ন্যাপড্রাগন ২০৫:

  • Dual-core Cortex A7 1.1 GHz (28nM)
  • Adreno 304 GPU
  • Ram: LPDDR 2/3 @ 384 MHz
  • Up to 3 MP camera support
  • Max 480p @ 30fps video record & 720p playback support
  • Quick Charge- No


স্ন্যাপড্রাগন ২১২:

  • Quad core Cortex A7 1.3 GHz (28nM)
  • Adreno 304 GPU
  • Ram: LPDDR 2/3 @ 533 MHz
  • Up to 8MP camera support
  • Max 720p video record & 1080p playback support.
  • Quick Charge 2.0

চিপসেট সম্পর্কে যারা কিছুটা ধারণা রাখেন তারা স্ন্যাপড্রাগন ২০৫/২১২ এর নাম দেখা মাত্রই বলে দিতে পারবে যে এগুলো একদমই লো পাওয়ার চিপসেট। ফিচার ফোনের জন্যে এগুলো আদর্শ চিপসেট। তবে যারা এই চিপসেট সংযুক্ত অ্যান্ড্রয়েড ফোন কিনতে চান তাদের জন্যে বলতে চাই, আপনি যদি ফোনে কথা বলা, টুকটাক নেট ব্রাউজিং, কিছু ছবি তোলা এবং একদমই লো-ডিমান্ডিং গেম খেলা ছাড়া আর তেমন কিছু না করেন তাহলে এসব ফোন নিতে পারেন। মিডিয়াম এবং হেভি ইউজারদের জন্য এসব চিপসেটের ফোন পছন্দ না করাই ভালো হবে। 

প্রাইসিং নিয়ে বলতে গেলে, স্ন্যাপড্রাগন ২০০ সিরিজের চিপসেট আছে এমন ফোনের দাম সর্বোচ্চ ৫-৬ হাজার টাকার মধ্যে থাকলে কিনতে পারেন। এর থেকে কিছুটা বেশি দামে স্ন্যাপড্রাগন ৪০০ সিরিজের চিপসেট আছে এমন অনেক ফোন পেয়ে যাবেন।

আশা করি পোস্টটি পড়ে অনেকেই উপকৃত হবেন। পোস্টে কোনো ভুল থাকলে বা পোস্টের মানোন্নয়নের জন্যে কোনো পরামর্শ থাকলে কমেন্ট করে জানিয়ে দিন।

আর এটি কোয়ালকম এর চিপসেট নিয়ে লেখা প্রথম আর্টিকেল, সামনে বাকি সিরিজগুলো নিয়েও আর্টিকেল পেয়ে যাবেন খুব শীঘ্রই। পোস্টে কোনো টপিক বা টার্ম নিয়ে বুঝতে সমস্যা হলে কমেন্ট করে জানিয়ে দিন। সামনে কোনো পোস্টে ওইসব টপিক নিয়ে আলোচনা করবো। পোস্টটি এতক্ষণ ধরে পড়ার জন্যে ধন্যবাদ।

ভালো লাগলে লাইক দিয়ে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারেন। এছাড়াও জয়েন করতে পারেন আমাদের ফেসবুক গ্রুপ, পেজ এবং ইন্সটাগ্রামে। আর অবশ্যই আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করতে ভুলবেন না। 

Avatar

Russell Hossain